ইউটিউব থেকে আয় করার উপায়

1
244

ইউটিউব থেকে আয় করার উপায় নিয়ে এই আর্টিকেলটি সাজানো হয়েছে। এই আর্টিকেলটি পড়লে আপনি জানতে পারবেন ইউটিউব থেকে আসলে কী আয় করা সম্ভব কি না! আর কিভাবে ইউটিউব থেকে আয় করা সম্ভব। যারা ইউটিউবিং শুরু করতে চান কিংবা অনলাইন থেকে আয় করতে চান তাদের উদ্দেশ্যে আজকের এই আর্টিকেলটি সাজানো হয়েছে।

ইউটিউব বর্তমান সময়ের অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম। বিভিন্ন ধরনের ভিডিও ইউটিউব থেকে আমরা দেখতে পারি। এছাড়া যে কেউ ইউটিউবে চ্যানেল খুলে ইউটিউবে ভিডিও আপলোড দিতে পারবে। আপনার হয়তো জানেনই যে এটি বিশ্বসেরা টেক জায়ান্ট কোম্পানি গুগলের একটি সার্ভিস। যদিও গুগল এই প্লাটফর্মটি নিজে তৈরী করেনি। চড হারলি, স্টিভ চেন এবং জাওয়েদ করিম ইউটিউব নামক এই প্লাটফর্মটি তৈরি করেছিলন ২০০৫ সালে। আর গুগল ২০০৬ সালে এই প্লাটফর্মটি কিনে নেন। তাহলে ভাবুন এক বছরেই এই প্লাটফর্মটি কতটা জনপ্রিয় হয়েছিল যে গুগলের মতোন একটা কোম্পানি কিনে নিয়েছে। একটু আন্দাজ করুন গুগল এটি কত টাকায় কিনে নিয়েছে। আন্দাজ করেছেন? গুগল এই সাইটি/ প্লাটফর্মটি ১.৬৫ বিলিয়ন ডলার দিয়ে কিনে নিয়েছে। যা বাংলাদেশী টাকায় ১৪ শত কোটি টাকারও বেশী।

এমন কি ছিল ইউটিউবে যে গুগল এত টাকায় ইউটিউবকে কিনে নেয়? ইউটিউবই ছিল বিশ্বের প্রথম ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম। আর ইউটিউব শুরুতে বর্তমানে যেমন ইউটিউব দেখছে তেমনটা ছিল না। প্রথমে এটি ডেটিং সাইট হিসাবে শুরু হয়েছিল। পরবর্তীতে সব ধরনের ভিডিও এর জন্য উনমুক্ত করে দেওয়া হয়। এর ফলে সবাই ইউটিউবে যুক্ত হওয়া শুরু করে আর খুব অল্প সময়ের মধ্যে প্লাটফর্মটি অনেক জনপ্রিয় হয়ে যায়।

আগের ইউটিউব আর বর্তমানের ইউটিউবের মধ্যে অনেক পার্থক্য হয়েছে। ২০০৫ সাল থেকে ইউটিউব তার জনপ্রিয়তা ধরেই আসছে। তাদের এই জনপ্রিয়তা ধরে রাখতে তার অসাধারণ একটি ফিচার ইউটিউবে যুক্ত করে। তা হলো মনিটাইজেশন সিস্টেম। যার মাধ্যমে ইউটিউবার বা ইউটিউবের কনটেন্ট ক্রিয়েটরা মনিটাইজেশনে আবেদনের মাধ্যমে এডসেন্সের মাধ্যমে ইউটিউব থেকে আয় করতে পারবে। মনিটাইজেশন ফিচারটি সকল কনটেন্ট ক্রিয়েটরদের আকর্ষণ করে ফলে তারা আরো ভালো ভালো ভিডিও ইউটিউবে দিতে থাকে এর ফলে ইউটিউবও তাদের জনপ্রিয়তা ধরে রাখিতে সক্ষম হয়। মনিটাইজেশন ছাড়া আরো অনেক উপায় আছে ইউটিউব থেকে আয় করার যা আমরা এখন জানতে চলেছি। কিন্তু, মনিটাইজেশন দিয়েই শুরু করব।

মনিটাইজেশন

ইউটিউব থেকে আয় করার জন্য মনিটাইজেশন সবচেয়ে ভালো একটি উপায়। ইউটিউব ও গুগল এডসেন্স দুটিই যেহেতু গুগলের একটি প্লাটফর্ম তাই ইউটিউবার তাদের চ্যানেলের ভিডিওতে এড বসিয়ে আয় করার জন্য এডসেন্সে জন্য আপিল করে। যেটাকে আমরা মনিটাইজেশন বলে থাকি।

তবে মনিটাইজেশন বা এডসেন্সের জন্য আপিল করার আগে বর্তমানে কিছু নিয়ম ইউটিউব যুক্ত করেছে। যেগুলোকে আমরা রিকোয়ারমেন্টস বলতে পারি।এই রিকোয়ারমেন্টস গুলো যদি কোন চ্যানেল কমপ্লিট করে তাহলে সে মনিটাইজেশনের জন্য আবেদন করার সুযোগ পাবে।

ইউটিউবে মনিটাইজেশনের রিকোয়ারমেন্ট সমূহঃ

  1. ইউটিউবের মনিটাইজেশনের পলিসি মেনতে হবে।
  2. আপনি যে দেশ থেকে ইউটিউবের মনিটাইজেশনের জন্য আবেদন করবেন তা ইউটিউব পার্টনার প্রোগ্রামে থাকতে হবে। আপনার জেনে রাখা ভালো যে, বাংলাদেশ ইউটিউব পার্টনার প্রোগ্রামে যুক্ত হয়েছে। তাই বাংলাদেশ সিলেক্ট করে আপনি মনিটাইজেশনের জন্য আবেদন করতে পারবেন যা আগে করা যেত না।
  3. ১২ মাসের মধ্যে ৪ হাজার ভিউস হতে হবে।
  4. সর্বনিম্ন ১০০০ সাবস্ক্রাইব থাকতে হবে আপনার ইউটিউব চ্যানেলে।

এসব রিকোয়ারমেন্টস যদি কোন চ্যানেল পূরণ করে তাহলে সেই চ্যানেলে মনিটাইজেশন অপশন অন হবে এবং সে চ্যানেল এডসেন্সের জন্য আবেদন করতে পারবে।

তবে, মনিটাইজেশন অপশন অন হলে এডসেন্সের জন্য আবেদন করলে এডসেন্স যে পাবেই তা কিন্তু নয়। এডসেন্স পাওয়ার জন্য এডসেন্সের নিয়মও মানতে হবে। এজন্য আপনার ইউটিউব চ্যানেলে ভালো মানে কনটেন্ট অর্থাৎ ভালো মানের ভিডিও থাকতে হবে।

এডসেন্স এপ্রুভাল হয়ে গেলে ইউটিউবে এডসেন্সের এডস আপনার ইউটিউব ভিডিওতে বসিয়ে ইউটিউব থেকে আয় করতে পারবেন। মনিটাইজেশন থেকে সব ইউটিউবারেরাই আয় করে থাকে। এটি ইউটিউব থেকে আয় করার সেরা একটি উপায়।

স্পন্সরশিপ

স্পন্সরশিপ এর মাধ্যমে ইউটিউব থেকে অনেক ইটিউবারই আয় করে আয় করে থাকে তবে, স্পন্সরশিপ ইউটিউউবের নিজস্ব কোন ফিচার নয়। স্পন্সরশিপ সাধারণত বিভিন্ন কোম্পানি ইউটিউবারদেরকে কাস্টম ভাবে দিয়ে থাকে তাদের বিভিন্ন পণ্য প্রমোশন করার জন্য। তাদের পণ্য প্রমোশন করার জন্য তারা ইউটিউবারকে টাকা দিয়ে থাকে। মনিটাইজেশনের পাশাপাশি স্পন্সরশিপ নিয়ে ইউটিউবাররা ভালো পরিমাণ ইনকাম করে থাকে।

আপনি হয়তো ইউটিউবে ভিডিও দেখার সময় একটা জিনিস দেখে থাকবেন সেটা হলো ভিডিও চলতে চলতে ওই টপিক রিলেটেড বা ওই টপিকের বাইরে কোন পণ্য/ প্রোডাক্ট সম্পর্কে কথা বলছে। সেটা কোন অ্যাপ হতে পারে বা কোন ওয়েবসাইট হতে পারে। এই জিনসগুলো তারা আপনাকে রিকোমেন্ট করতিছে। এগুলো হলো স্পন্সর

তবে সব ইউটিউবার যে স্পন্সরশিপ পায় বা স্পন্সরশিপ গ্রহণ করে তা কিন্ত নয়। স্পন্সরশিপ পাওয়ার জন্য ইউটিউব চ্যানেলে বেশী পরিমাণ সাবস্ক্রাইব ও ভালো ওয়াচ টাইমের প্রয়োজন। এছাড়া অনেক ইউটিউবার আছে যারা স্পন্সরশিপ নাকোজ করে দেয় বা স্পন্সরশিপ নেয় না।

ইউটিউবিং এর শুরুতে স্পন্সরশিপ পাওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই। তাই স্পন্সরশিপ থেকে আয় করা প্রথম দিকে মাথা থেকে বেড় করে দিতে হবে।

অ্যাফিলিয়েট

অ্যাফিলিয়েট এর মাধ্যমে অনেক ইউটিউবার ইউটিউব থেকে ভালো পরিমাণ আয় করছে। অ্যাফিলিয়েট থেকে আয় করা অনেক ভালো একটি মাধ্যম ইউটিউব থেকে। ভালো পরিমাণ ইনকাম করা যায় অ্যাফিলিয়েটের মাধ্যমে। বিভিন্ন নামি দামী কোম্পানীর প্রোডাক্ট বিক্রি করে এই পদ্বতিতে আয় হয়ে থাকে।

মনিটাইজেশনের পাশাপাশি আপনি অ্যাফিলিয়েট করে আয়ের পরিমাণ বাড়িয়ে নিতে পারবেন। এর পাশাপাশি স্পন্সরশিপ তো থাকছেই। ইউটিউব থেকে আয় করার জন্য অ্যাফিলিয়েটকে সেরা একটি পদ্বতি ধরে নিতে পারেন।

নিজের প্রোডাক্ট বিক্রি

ইউটিউব থেকে আপনি আপনার নিজের কিছু প্রোডাক্ট বিক্রি করে ভালো পরিমাণ আয় করতে পারবেন। অনেকেই আছে যারা ইউটিউবে নিজের তৈরী বিভিন্ন প্রকার পণ্য বিক্রি করছেন। এছাড়া আপনি চাইলে ইউটিউবকে একটি শপের মতোন ব্যবহার করতে পারবেন।

মানে বিভিন্ন পণ্য রিভিউ দিয়ে সেগুলো আপনি আপনার ভিউয়ারসের কাছে বিক্রি করতে পারবেন। এ পদ্বতিতে আপনার প্রফিট অনেক বেশী হবে।

পরামর্শ

এই উপায়গুলো ছাড়া আরো কিছু উপায় আছে যেগুলোর মাধ্যমে আপনি ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে পারবেন। কিন্তু, এই উপায়গুলো সেরা। বেশীরভাগ ইউটিউবারই এই উপায়গুলোর মাধ্যমে ইউটিউব থেকে ইনকাম করে থাকে। তাই আপনি যদি ইউটিউব থেকে আয় করা শুরু করতে চান এই উপায়গুলো ব্যবহার করুন।

তবে, যতই উপায় থাকুক না কেন মনিটাইজেশনের মাধ্যমে ইউটিউব থেকে আয় করা সেরা একটি উপায়। ভালো পরিমাণ আয় ইউটিউবের মনিটাইজেশনের মাধ্যমে করা সম্ভব। শুরুর দিকে আপনাকে ইউটিউব থেকে আয় করারা জন্য অনেক পরিশ্রম করতে হবে। কেননা, আপনার চ্যানেলে সবস্ক্রাইবার বেশি না থাকলে আর ভিডিওতে ভালো পরিমাণ ভিউ না পেলে ইউটিউব থেকে আয় করা শুরু করতে পারবেন না। তাই অবশ্যই আপনাকে ভাল কনটেন্ট আপনার চ্যানেলে দিতে হবে। এরপর যখন আপনার চ্যানেলটি মনিটাইজেশন তখন থেকে ইনকাম শুরু করতে পারবেন।

শেষ কথা

আশা করছি ইউটিউব থেকে আয় করার ব্যাপারে আপনি ভালো পরিমাণ একটা ধারণা পেয়েছে। আপনি এই উপায়গুলো ব্যাবহার করে ইউটিউব থেকে ইনকাম করার যাত্রা শুরু করে দিতে পারেন। তবে প্রথম দিকে আয় করা একটু কঠিন হবে। আপনি আপনার চেষ্টা ও পরিশ্রম অব্যহত রাখলে ইউটিউব থেকে অবশ্যই আয় করতে পারবেন।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here