যে কারণে ব্লগিংয়ের জন্য ব্লগার.কম বেছে নিবেন

0
235

ব্লগার.কম ব্লগিংয়ের জন্য গুগলের জনপ্রিয় একটি প্লাটফর্ম। অনেক ব্লগার আছে যার ব্লগিংয়ের জন্য ব্লগারকে বেছে নিয়েছে। এই আর্টিকেলটিতে আমরা ব্লগারকে বেছে নেওয়ার কিছু কারণ সম্পর্কে জানব।

ব্লগিং করার জন্য অনেক প্লাটফর্ম আছে যেমনঃ উইক্স (Wix), ওয়ার্ডপ্রেস.ওয়ার্গি (WordPress.org), ওয়েবলি (Weebly) ইত্যাদি। তার মধ্যে ব্লগার.কম (Blogger.com) একটি। এটি বিশ্ব সেরা টেক জায়ান্ট কোম্পানি গুগলের একটি সার্ভিস। এটাকে অনেকেই ব্লগস্পট নামেও চেনেন। আপনি যদি ব্লগিংয়ে নতুন হন তাহলে ব্লগারকে বেছে নেওয়া আপনার জন্য বুদ্ধিমানের কাজ হবে। কেননা, ব্লগিংয়ে শুরুতে হোস্টিং, ডোমেইন, থিম ইত্যাদির পিছনে আপনি নিশ্চয়ই কখনো টাকা খরচ করতে চাইবেন না। অথবা আপনার এই সম্পর্কে ভালো জ্ঞান নাও থাকতে পারে। তাই অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন। এইসব সমস্যা এড়াতে এবং টাকা বাচাতে ব্লগার আপনার জন্য সেরা একটি সমাধান।

ব্লগার

কিছুক্ষণ আগে যেমনটা বললাম! এটি গুগলের একটি সার্ভিস। কিন্তু গুগল এটি ডেভেলপ করে নি। পাইরা ল্যাবস নামক একজন ডেভেলপার এই প্লাটফর্মটি ডেভলপ করেছিলেন। আর, গুগল ২০০৩ সালে এই প্লাটফর্মটি কিনে নিয়ে তাদের নিজেদের সার্ভারে হোস্ট করে। যে কোন ব্লগারে জিমেইল দিয়ে ব্লগারে সাইন ইন করলে ব্লগার থেকে ফ্রিতে একটি ব্লগ ওয়সবসাইট তৈরি করে নিতে পারবেন। এ জন্য গুগলকে কোন প্রকার টাকা-পয়সা দিতে হবে না। কিন্তু এর থেকে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন। যা ব্লগারের জনপ্রিয়তার মূল কারণ হিসাবে ধরতে পারেন।

কেন ব্লগিংয়ের জন্য ব্লগার.কম বেছ নিবেন

ব্লগার ডট কম বেছে নেওয়ার কারণগুলো সম্পর্কে এখন জেনে নেওয় যাক।

ফ্রি হোস্টিং

ওয়েবসাইট তৈরি অন্যতম মূল উপাদান হলো হোস্টিং। হোস্টিং ছাড়া কোন ওয়েবসাইট তৈরি করা সম্ভব না। হোস্টিংয়ে আপনার ওয়েবসাইট হোস্ট করে রাখা হয়।

আপনাকে আমিবএকটি উদাহরণ দিয়ে বোঝাচ্ছি। ধরেন, আপনি একটি বাড়ি বানাবেন। বাড়ি বানানোর জন্য আপনার সবার আগে কি প্রয়োজন? কিছু পরিমাণ জমি তাই তো? জমি ছাড়া বাড়ি বানাতে পারবেন? তেমনি এখানে একটি ওয়েবসাইট বানানোর জন্য কিছু পরিমাণ জমি প্রয়োজন। আর সেই জমি টাকে হোস্টিং বলা হচ্ছে। কিন্তু এই জমি কি আপনাকে কেউ ফ্রিতে কখনো দিবে? আপনার নিজের বাড়ি বানানোর জন্য জমি কিনে বানাতে হবে।

তাই ওয়েবসাইট তৈরির আগে হোস্টিং কেনা জরুরী। আপনি আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী ১ জিবি থেকে শুরু করে ইচ্ছামতো সাইজের হোস্টিং কিনতে পারবেন। কোন কোন হোস্টিং কোম্পানি ৫১২ এমবির হোস্টিং সুবিধাও প্রদান করে থাকে। আর আপনাকে প্রতিবছর হোস্টিং ফি প্রদান করতে হবে। মানে রিনিউ করতে হবে।

কিন্তু, আপনি যদি ব্লগার প্লাটফর্ম ব্যবহার করেন তাহলে আপনাকে জমি কেনার কোন প্রয়োজন পড়বে না। গুগল আপনাকে ফ্রিতেই জমি মানে হোস্টিং দিয়ে দিবে। তাই কোন প্রকার টাকা খরচ করা ছাড়া ব্লগারে ব্লগ ওয়েবসাইট বানিয়ে ব্লগিং শুরু করতে পারবেন।

যা নতুন ব্লগারদের বা যারা টাকা খরচ ছাড়া ব্লগিং করতে চায় তাদের জন্য অনেক গুণ ভালো।

ফ্রি ডোমেইন

একটি ওয়েবসাইট তৈরির দ্বিতীয় আরেকটি মূল উপাদান হলো ডোমেইন। ডোমেইন সম্পর্কে কিছু বলার আগে সেই বাড়ি তৈরির উদাহরণে যাই। আপনি যদি বাড়ি তৈরি করার জন্য জমি নিয়ে থাকেন তাহলে বাড়ি তৈরির পর বাড়ির জন্য একটি নাম রাখতে হবে তাই না? বাড়ির নাম বা ঠিকানা না থাকলে কাউকে কি আপনার বাড়ির লোকেশন জানাতে পারবেন? এই ডোমেইনটি হলো আপনার হোস্টিংয়ের ঠিকানা। আপনার ওয়েবসাইটে ঠিকানা জানা থাকলে যে কেউ ইন্টানেটের আওতায় এসে আপনার ওয়েবসাইটকে এক্সেস করতে পারবেন।

কিন্তু, ইন্টারনেটের এই ঠিকানা আপনি ফ্রিতে পাবেন নাম। ডোমেইন এক্সটেনশন এর উপর ভিত্তি করে একেকটার দাম একেক রকম। আর প্রতিবছর নতুন করে রিনিউ করে নিতে হয়। তবে বিশ্বে সবচেয়ে জনপ্রিয় ও ব্যবহৃত ডোমেইন এক্সটেনশন ডট কম (.com)। ১০ ডলারে মধ্যে এই ডোমেইন এক্সটেনশন কিনতে পারবেন।

তবে, ব্লগারে যখন আপনি একটি ব্লগিং ওয়েবসাইট তৈরি করবেন তখন আপনাকে ডোমেইন না কিনলেও চলবে। আপনি ফ্রি ব্লগারের তরফ থেকে একটি ডোমেইন পাবেন। যেটাকে ডোমেইন না বলে সাব-ডোমেইন বলতে পারেন। সেক্ষেত্রে, আপনার সাইটের লিংকটি ঠিক এমন হবে – https://www.আপনার পছন্দ মতো সাইটের নাম.blogspot.com। তবে আপনি চাইলস কাস্টম একটি ডোমেইন নামও যুক্ত করে নিতে পারবেন।

নিরাপত্তা

ব্লগার সাইটে নিরাপত্তা অনেক গুণ ভালো। কেউ চাইলেও সরাসরি আপনার ব্লগার ওয়েবসাইটিকে হ্যাক করতে পারবে না। অথবা, আপনার সাইটে হ্যাকিং অ্যাটাক করেও কোন প্রকার লাভ হবে না। তবে কেউ যদি আপনার বা যকোন ব্লগার সাইট হ্যাক করতে চায় তাহলে দুইটি উপায়ে হ্যাক করাতে পারবে।

  1. ব্লগার সার্ভারকে হ্যাক করে
  2. আপনার ব্লগার অ্যাকাউন্টের জিমেইল হ্যা করে

এই দুইটি উপায়ে হ্যাক করা সত্যিই অনেক কষ্টসাধ্য।তবে অসম্ভব নয়।

ব্লগার সার্ভার হ্যাকঃ আপনি আপনার ব্লগ সাইটিকে নিরাপদ রাখতে এই বিষয়টি নিয়ে আপনাকে চিন্তা করতে হবে। কারণ এই চিন্তা ব্লগারের ডেভলপারের। আর অত সহজ না ব্লগার সার্ভার হ্যাক করা। আর যদি কোন কারণে হ্যাক হয়ে যায় তবু আপনার কিছু করার নেই।

আপনার ব্লগারের জিমেইল অ্যাকাউন্ট হ্যাকঃ আপনার ব্লগার সাইট হ্যাক করার আরেকটি উপায় হলো আপনি যে জিমেইল অ্যাকাউন্ট দিয়ে ব্লগার অ্যাকাউন্ট তৈরি করেছেন সেই জিমেইল অ্যাকাউন্টটি হ্যাক করা। আপনার ব্লগ সাইটির নিরাপত্তার জন্য আপনাকে একটি করতে হবে তা হলো আপনার জিমেইল অ্যাকাউন্টের নিরাপত্তা নিশ্চয়ন। টু-স্টেপ সহ প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা সেটিং অন রাখুন।

বুঝতেই পারছেন ব্লগার সাইটের নিরাপত্তা ব্যবস্থা অনেক ভালো। আপনার সাইটের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা তেমন একটা নেই।

আয়

ব্লগিংকে বেছে নেওয়ার অনেকেরই মূল উদ্দেশ্য হলো আয় করা। আপনি ব্লগার থেকে বিনা খরচে ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করে এডসেন্সের এড বসিয়ে আয় করতে পারবেন। এজন্য আপনাকে আপনার ব্লগে কোয়ালিটি সম্পন্ন কনটেন্ট দিতে হবে। ভালো কিছু কনটেন্ট আপনার ব্লগার সাইটে দেওয়ার পর এডসেন্স এর জন্য আবেদন করার সুযোগ আপনি পাবেন। এডসেন্স আপনার আবেদন যদি গ্রহণ করে তাহল আপনি আপনার ব্লগে এদ বসানোর সুযোগ পাবেন আর আয়ও করতে থাকবেন। অনেকেই আছেন যারা ব্লগার থেকেই ভালো পরিমাণ ইনকাম করছেন।

নিয়ন্ত্রণ

ব্লগার সাইট নিয়ন্ত্রন করা কোন কঠিন কাজ না। চেষ্টা আপনি নিজে থেকে ব্লগারের সব কিছু কাজ অনেক তাড়াতাড়ি শিখে যাবে। ব্লগারের ফাংশন খুব একটা জটিল নয়। এর ইউজার ইন্টারফেইজ ইউজার বর্তমানে ইউজার ফ্রেন্ডলি। ব্লগার রিসেন্টলি তাদের ভার্সন আপডেট করেছে এবং ডিজাইনের অনেকটা পরিবর্তন করেছে। মোবাইল ইউজাররা জেনে খুশি হবেন যে ব্লগার এখন রেসপন্সিভ ডিজাইন করেছে। তাই মোবাইলেও স্বাছন্দে ব্লগার ব্যবহার করা যায়।

ব্লগারে নতুন যুক্তু হলে একটু একটু সমস্যা হতে পারে। সেই সমস্যার সমাধান পাওয়ার জন্য গুগলে বা ইউটিউবে সার্চ করবেন। তাছাডা আমার মনে হয় না ব্লগার ব্যবহার করতে গিয়ে খুব বেশী সমস্যার সম্মুখীন আপনি হবেন।

শেষ কথা

ফ্রি ব্লগিং প্লাটফর্ম হিসাবে ব্লগার অন্যান্য প্লাটফর্মের চেয়ে অনেক ভালো এবং অনেক সুবিধা আপনি এখানে পাবেন। তাছাড়া ফ্রিতেই ব্লগারের জন্য ভালো মানের টেমপ্লেট পেয়ে যাবেন। ব্লগার যেহেতু গুগলেরই একটি প্লাটফর্ম তাই ভালো মানের কনটেন্ট আপনার ব্লগে থাকলে ফ্রিতে সাব ডোমেইনে এডসেন্স পেতে তেমন কোন অসুবিধা আপনার হবে না।

আপনি যে ব্লয়াগারে শুধু ব্লগ সাইট বানাতে পারবেন তা কিন্তু নয়। পোর্টফোলিও, ছোট খাট ই-কমার্স সাইট আমনি ব্লগার থেকে বানিয়ে নিতে পারবেন। এজন্য ভালো মানের টেমপ্লেট আপনাকে কিনতে হবে। অথবা একটি খোঁজাখুঁজি করলে সেই টেমপ্লেট ফ্রিতেই পেয়ে যেতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here